মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

যোগাযোগ ব্যবস্থা

নদীআকীর্ণহওয়ায়সর্বত্রযাতায়াতেরজন্যঅতীতেনৌকাওলঞ্চইবেশিব্যবহৃতহতো।বর্তমানেবরিশালশহরেরসঙ্গেবাবুগঞ্জ, উজিরপুর, গৌরনদী, বানারীপাড়া, আগৈলঝাড়াওবাকেরগঞ্জউপজেলারসরাসরিসড়কযোগাযোগথাকলেওহিজলা, মুলাদীওমেহেন্দীগঞ্জেরসঙ্গেমূলতনদীপথেইযাতায়াতকরতেহয়।তবেউপজেলাগুলোরপ্রত্যন্তঅঞ্চলেযাতায়াতেরজন্যনৌকা, ট্রলার, লঞ্চকিংবাস্পিডবোটেরউপরনির্ভরকরতেহয়।

 

ঢাকা-বরিশালযাতায়াতেরজন্যলঞ্চেভ্রমণইসবচেয়েআরামদায়কওতুলনামূলকভাবেবেশিনিরাপদ।ঢাকারসদরঘাটলঞ্চটার্মিনালথেকেপ্রতিরাতেবেশকয়েকটিলঞ্চবরিশালেরউদ্দেশ্যেরওনাহয়।পাশাপাশিসড়কপথেওপৌঁছানোযায়বরিশালে।ঢাকারগাবতলীবাসস্ট্যান্ডথেকেসারাদিনইঘণ্টায়ঘণ্টায়বাসছাড়েবরিশালেরউদ্দেশ্যে।অধিকাংশবাসইযায়পাটুরিয়াঘাটপারহয়ে, তবেকিছুবাসমাওয়াঘাটহয়েওবরিশালেপৌঁছায়।এক্সপ্রেসবাসসার্ভিসেরপ্রায়সবকটিইফেরি-পারাপার।

ঢাকাথেকেবরিশাল(লঞ্চযোগে)



লঞ্চছাড়ারস্থান


লঞ্চেরনাম


লঞ্চছাড়ারসময়


পৌঁছানোরসম্ভাব্যসময়


পৌঁছানোরস্থান


ভাড়াবিষয়কতথ্য


সদরঘাটলঞ্চটার্মিনাল, ঢাকা।


সুরভী, সুন্দরবন, কীর্তনখোলা, কালামখান, পারাবতইত্যাদি।


রাতআটটা।


লঞ্চছাড়ার৮-১০ঘণ্টারমধ্যে।


লঞ্চঘাট, বরিশাল।


লঞ্চেসিঙ্গেলকেবিনেরভাড়া৮৫০টাকা, ডাবলকেবিনেরভাড়া১৬০০, ডেকে২৫০টাকা।

 ঢাকাথেকেবরিশাল(বাসযোগে)



বাসছাড়ারস্থান


বাসেরনাম


বাসছাড়ারসময়


পৌঁছানোরসম্ভাব্যসময়


পৌঁছানোরস্থান


ভাড়াবিষয়কতথ্য


গাবতলীবাসস্ট্যান্ড, ঢাকা।


সাকুরা, ঈগল, হানিফইত্যাদিছাড়াওঅন্যান্যপরিবহনেরলোকালবাসসার্ভিস।


ভোরছয়টাথেকেবাসছাড়ে।এরপর  প্রতিএকঘণ্টাপরপররাতদশটাপর্যন্তবাসপাওয়াযায়।


বাসছাড়ার৬-৮ঘণ্টারমধ্যে।


নথুল্লাবাদবাসস্ট্যান্ড, বরিশাল।


এসিবাসে৬০০টাকা, নন-এসিবাসে৪০০টাকা, লোকালবাসে২৫০-৩০০টাকা।<